বর্তমান সময়ে সারা বিশ্বে সবচেয়ে বেশি নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন মুসলিমরা।তার কারন হচ্ছে আমাদের কোন নেতা নেই।তাছাড়া আমরা নিজেরাই এখন বিভিন্ন সংঘর্ষে লিপ্ত।তাই আমরা একত্রিত হতে পারছিনা। আর এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ফায়দা নিচ্ছে অমুসলিমরা।তাই এখন সময় এসেছে আমাদের এক হওয়ার।আর এই মুসলিম বিশ্বকে একত্রিত করার জন্য কাজ করছেন তুরস্কের বর্তমান প্রেসিডেন্ট।

৫৭টি মুসলিম দেশকে একত্রিত করে একটি বিশাল ইসলামি সেনাবাহিনী গঠন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তুরস্কের বর্তমান প্রেসিডেন্ট রজব তায়্যিব এরদোগান।

এটিকে ‘আর্মি অব ইসলাম’ বা ‘ইসলামি আর্মি’ নামে অভিহিত করা হবে। খবর তুর্কি সংবাদ মাধ্যম সিয়াসাতের।

মূলত ইহুদিবাদি সন্ত্রাসী রাষ্ট্র ইসরাইলকে রুখতে ৫ মিলিয়ন শক্তিশালী এই সেনাবাহিনী গঠন করা হবে।

ইসরাইলি আক্রমণ প্রতিরোধ করা ছাড়াও বিভিন্ন ইসলামি সঙ্কটে ইসলামি আর্মি যাতে আক্রমণ চালাতে পারে তার জন্য এই ধরনের বিশাল সেনাবাহিনী গঠনে ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার ৫৭টি সদস্য দেশের কাছে মতামত চাওয়া হয়েছে।

যদি ওআইসি সদস্য দেশ ‘ইসলামি আর্মি’ গঠন করতে সম্মত হয়, তবে এটা দখলদার ইসরাইলের সামরিক বাহিনীর তুলনায় অনেক বেশি শক্তিশালী হবে।

উল্লেখ্য, ওআইসি সদস্য দেশগুলোর জনসংখ্যা ১৬৭,৪৫,২৬,৯৩১ জন এবং এসব দেশের মধ্যে সক্রিয় সামরিক বাহিনী ৫২ লাখেরও বেশি এবং তাদের প্রতিরক্ষা বাজেট ১৭৪ বিলিয়ন ৭০ কোটি ডলার।

অন্যদিকে, ইসরাইলের মোট জনসংখ্যা ৮০ লাখ ৪৯ হাজার ৩১৪ জন এবং এর সক্রিয় সামরিক বাহিনী মাত্র ১৬০,০০০ জন এবং প্রতিরক্ষা বাজেট ১৫ বিলিয়ন ৬০ কোটি ডলার।

Comments

comments

SHARE